" " " "

টিউবওয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় বিস্তারিত

আসসালামু আলাইকুম আপনার বাসা বাড়ির টিউবয়েলের পানিতে কি খুব বেশি পরিমাণ এর আয়রন রয়েছে? আর আপনি এই আয়রন নিয়ে খুবই চিন্তিত? চিন্তার কোন কারণ নেই আজকের পোস্টে আমরা টিউবয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

আমাদের দেশের প্রায় প্রত্যেক অঞ্চলেই আয়রন রয়েছে। আর যে স্থানে বেশি পরিমাণ আয়রন রয়েছে সেখানে যদি আমরা টিউবয়েল বসাই তাহলে সেই পানিগুলোতে প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে।

তবে হ্যাঁ এই আয়রনগুলো চেষ্টা করলেই কিন্তু আমরা সরিয়ে ফেলে পরিষ্কার পানি পান করতে পারব। এজন্য আমাদেরকে অবশ্যই টিউবয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় গুলো খুব ভালোভাবে জানতে। চলুন তাহলে কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক ।

পানিতে আয়রন পরীক্ষা করার উপায়

পানির আয়রন দূর করার উপায় জানার আগে অবশ্যই সেটা পরীক্ষা করে নিতে হবে যে আসলেও পানিতে আয়রন আছে কিনা। যদি আপনার পানিতে আয়রন না থাকে তাহলে তো আর টিউবয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় জানতে হবে না।

তো এই কারণে প্রথমেই আমরা আপনাকে পানিতে আয়রন পরীক্ষা করার উপায় টি বলে দেব। চলুন দেখে নেই –

✓ রং দেখে: মনে রাখবেন রং দেখে কিন্তু পানিতে আয়রন পরীক্ষা করা যায়। কারণ এই আয়রনের কারণে পানির রঙ অনেকটা পরিবর্তন হয়ে যায়।

যখন আপনি আপনার বাসার পানি ব্যবহার করে দেখতে পাচ্ছেন যে আপনার কাপড় চোপড় এর রং লাল হয়ে যাচ্ছে তখন এখানে বুঝে নিবেন যে এই পানিতে সমস্যা আছে।

এছাড়াও আপনার টিউবওয়েল যে স্থানে অবস্থান করছে সেখানে যে পানি যাওয়ার স্থান আছে সেখানেও দেখবেন লাল হয়ে গেছে। আবার যখন এই আয়রনযুক্ত পানি দিয়ে ভাত রান্না করা হয় তখন দেখবেন ভাত এর রং কিছুটা ডিস্কালার হয়ে যায়।

ভাত ছাড়াও আয়রন যুক্ত পানি দিয়ে তরকারি রান্না করলে সেই তরকারিও অনেকটা কালচে ভাব হয়ে যায়। এগুলো যদি আপনার পানির সাথে ঘটে থাকে তাহলে বুঝে নিবেন যে আপনার পানিতে অবশ্যই আয়রন রয়েছে।

✓ পানের স্বাদ দেখে: যখন আপনি কোন আয়রন মুক্ত একদম ১০০% আয়রন মুক্ত পানি খাবেন তখন দেখবেন আলাদা একটা তৃপ্তি আসবে।

এছাড়াও আয়রন মুক্ত স্বচ্ছ পানি গুলোর স্বাদ আর একটা অন্য রকমের আছে। কিন্তু যখন আপনি আয়রনযুক্ত কোন টিউবওয়েলের পানি পান করতে যাবেন তখন দেখবেন সেখানে আলাদা একটি সাদ অনুভূত হবে ।

এছাড়াও কোন আয়রনযুক্ত টিবয়েলের পানি যখন কেউ খেতে দেয় তখন সে সেই পানিকে একটু মিঠা ভাব অনুভব করে। অর্থাৎ সেই পানিগুলো একটু মিঠা লাগবে তাহলেই বুঝবেন সেখানে আয়রন আছে।

✓ শরীরে ব্যবহার করে: পানি দিয়ে গোসল করা বা হাত মুখ ধুলেই বোঝা যায় যে সেই পানিতে কোন সমস্যা আছে কিনা। তো আপনিও কিভাবে এই পানি ব্যবহার করে বুঝে নিবেন যে সেখানে আয়রন আছে কিনা সেটা এখন বুঝিয়ে দেব।

যখন আপনি আয়রনযুক্ত পানি ব্যবহার করতে যাবেন তখন দেখবেন সেই পানিগুলো যেখানে আপনার লাগবে সেখানে একটু আঠা ভাব হবে।

এছাড়াও এই পানিগুলো দিয়ে যখন আপনি আপনার মাথা ধৌত করবেন তখন দেখবেন চুলের মধ্যে জট বেধে যাচ্ছে। যখন এই প্রাণীগুলো দিয়ে গোসল করা হয় তখন শরীরের মধ্যে আলাদা একটা অস্বস্তি কাজ করে।

তো বন্ধুরা পানিতে আয়রন পরীক্ষা করার উপায় গুলোর মধ্যে উপরে আমি যে তিনটি উপায় আপনাদেরকে বললাম এগুলো একদমই সহজ। এই উপায় গুলো যে কেউ অবলম্বন করে বুঝতে নিতে পারবে যে তাদের পানিতে আয়রন আছে কিনা।

পানিতে আয়রন থাকলে কি হয়

পানিতে আয়রন থাকলে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হতে পারে। এই কারণে এখন আমরা এই পানিতে আয়রন থাকলে কি হয় সেটা আপনাদেরকে জানাবো।

যখন কোনো টিউবয়েলের প্রতি কেজি পানিতে ০.৩ মিলিগ্রাম এর উপর লোহা থাকে তখন সেই পানিকে আয়রনযুক্ত পানি বলা হয়। আর এত বেশি পরিমাণে আয়রন থাকলে সেটাকে অনেক আপত্তিজনক হিসেবে ধরা হয়।

আর যদি আপনার ব্যবহার করা পানিতে ০.১ মিলিগ্রাম এর নিচে আয়রন থাকে প্রতি লিটারে তাহলে এটা একদম নরমাল। অর্থাৎ এই পরিমাণের আয়রন থাকলে সেই পানি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করা যাবে কোন ধরনের সমস্যা হবে না।

এরপরও যদি আমরা আয়রনযুক্ত পানি প্রতিনিয়ত পান করি তাহলে শরীরে খুব বেশি একটা সমস্যা দেখা যাবে না। এর কারণ আমাদের শরীরের মধ্যে অক্সিজেন চলাচল করে এই আয়রনের সাহায্যে।

আর এই আয়রনগুলো পাই আমরা প্রতিনিয়ত গ্রহণ করা বিভিন্ন ধরনের খাদ্য থেকে। কিন্তু যখন আমরা পানির সাথে আয়রন গ্রহণ করি তখন সেটা শরীরের জন্য কোন কাজে লাগে না সেটা আবার শরীর থেকে অটোমেটিক বের হয়ে যায়।

তবে হ্যাঁ যদি আপনার টিউবওয়েল থেকে যে সমস্ত আয়রনযুক্ত পানি বের হয় তার সাথে অন্য আরও জীবাণু বা ব্যাকটেরিয়া উঠে আসে তাহলে সমস্যা হতে পারে।

এখানে যে স্থানে বেশি আয়রন থাকে সেখানে অন্যান্য জীবাণু বা ব্যাকটেরিয়া থাকারও সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এই কারণে আয়রনযুক্ত পানিতেও ব্যাকটেরিয়া থাকা সম্ভাবনা অনেক বেশি।

আর এই ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া গুলো যদি আমাদের দেহের মধ্যে প্রতিনিয়ত প্রবেশ করতে থাকে তাহলে একসময় দেহের মধ্যে মারাত্মক ড্যামেজ সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

এই কারণে অবশ্যই আপনার পানিতে জীবাণু থাকলে সেটা মুক্ত করতে হবে এবং আয়রন মুক্ত করে তারপর সেটা পান করতে হবে এবং ব্যবহার করতে হবে।

টিউবওয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায়

এখন আমরা আজকের পোষ্টের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ টপিক টিউবওয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। আমরা যে সমস্ত পানির আয়রন দূর করার উপায় আপনাদেরকে জানাবো এগুলো ব্যবহার করে আপনি খুব সহজে আয়রন মুক্ত পানি পান করতে পারবেন।

যদিও আগে এই সমস্ত প্রযুক্তি ছিল না কিন্তু আধুনিক যুগে এসে আমরা বিভিন্ন উপায়ে আমাদের টিউবয়েলের পানি আয়রন গুলো মুক্ত করতে পারি। তো চলুন কথা না বাড়িয়ে শুরু করি –

সতর্কতা: টিউবলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় নিয়ে আমরা অনেকেই একটা ভুল ধারণা পোষণ করি। আমরা অনেকেই বিশ্বাস করি যে পানিগুলো ফুটিয়ে খেলে হয়তো সেখান থেকে আয়রন চলে যাবে।

কিন্তু এই কাজটি কখনোই করা যাবে না। কারণ আয়রন যুক্ত পানি ফোটালে তার মধ্যে থাকা আয়রন গুলো আরো মারাত্মক আকার ধারণ করে। আর এই আয়রনযুক্ত পানি ফুটিয়ে খেলে শরীরের জন্য সেটা আরো মারাত্মক ক্ষতি হয়।

এই কারণে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে এবং আয়রনযুক্ত পানি কোনভাবে ফুটিয়ে পান করা যাবে না।

ফিল্টার ব্যবহার করে

বন্ধুরা যতগুলো প্রচলিত পানিতে আয়রন দূর করার উপায় আছে তার মধ্যে সবথেকে সহজ এবং সঠিক পদ্ধতি হচ্ছে ফিল্টার ব্যবহার করা।

আর এই ফিল্টার এর মাধ্যমে আপনারা টিউবয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় ও অবলম্বন করতে পারবেন। তো এর জন্য আপনাকে বাজার থেকে নতুন ফিল্টার কিনে আনতে হবে।

অনেক ধরনের ফিল্ডার বাজারে পাওয়া যায়। কিছু কিছু ফিল্টার আছে যেগুলো বৈদ্যুতিক ভাবে চলে অর্থাৎ সেগুলো কারেন্ট দিয়ে চালাতে হয়।

আবার কিছু কিছু ফিল্টার আছে যেগুলো কারেন্ট ছাড়াই চলে আর এগুলোতে পানি দেওয়ার কিছুক্ষণ পরে দেখবেন পানিগুলো একদম পরিষ্কার হয়ে বেরিয়ে আসবে।

তাই আপনার টিউবলে যদি অনেক বেশি পরিমাণ আয়রন থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি ভালো মানের একটি ফিল্টার নিয়ে এসে সেটা ব্যবহার করে আপনার পানি থেকে আয়রন মুক্ত করবেন।

আর হ্যাঁ আরেকটি ভালো ব্যাপার হচ্ছে এই ফিল্টার গুলো ব্যবহার করে কিন্তু আপনারা পানি থেকে ব্যাকটেরিয়া এবং জীবানু গুলোকে সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করতে পারবেন।

ফিটকিরি ব্যবহার করে

আপনি যদি সব থেকে কম খরচে টিউবয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় জানতে চান তাহলে আমি আপনাকে এই ফিটকিরি ব্যবহার করার পরামর্শ দেব।

তবে হ্যাঁ এই ফিটকিরি ব্যবহার করে পানিতে আয়রন দূর করার উপায়টি কিন্তু একটু সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। কিন্তু এটি ব্যবহার করলে আপনার পানি একদম 100% সচ্ছ ও ফ্রেশ হয়ে যাবে।

তো বন্ধুরা এর জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম বাজার থেকে ভালো মানের ফিটকিরি কিনে নিয়ে আসতে হবে। তারপর একটি বালটিতে বা পরিষ্কার পাত্রে পানি নিতে হবে।

পানিগুলো নেওয়ার পর সেখানে পরিমাণ মতো খানিক ফিটকিরি দিয়ে রেখে দিতে হবে। তো এভাবে আপনাকে ১০ থেকে ১২ ঘন্টা রেখে দিতে হবে। চাইলে আপনারা রাত্রের বেলা এটি দিয়ে রাখতে পারেন। সকালে উঠে দেখবেন অবিশ্বাস্যভাবে আপনাদের পানিতে থাকা আয়রনগুলো একদম পাতিলের তলায় জমে গেছে।

আপনি সকালে উঠে এই আয়রনগুলো সুন্দরভাবে দেখতে পারবেন। দেখবেন যে পানির নিচে সেগুলো সুন্দর ভাবে বসে আছে। তারপর সেই পাতিল থেকে উপরে উপরে পানিগুলো আর একটা পাতিলে ঢেলে নিবেন এবং সেগুলো ব্যবহার করবেন।

অন্য জায়গা থেকে পাইপ আনা

আপনার বাড়িতে যে টিউবয়েলটি এখন বসিয়েছেন হয়তো সেটাতে আয়রন থাকলেও আশেপাশের মাটিতে আয়রন নাও থাকতে পারে।  দেখা যায় একটা বাড়ির বিভিন্ন অংশে আয়রন আছে আবার বিভিন্ন অংশের পানি একদম ফ্রেশ।

তো আপনাকে আপনার বাড়ির প্রত্যেকটা জায়গায় পরীক্ষা করে নিতে হবে এবং বুঝতে হবে যে কোন জায়গাটি থেকে একদম আয়রন মুক্ত পানি পাওয়া যাবে।

তারপর সেখানে নতুন করে পাইপ বসিয়ে একটি বোর্ডিং করে নেবেন। এরপর এখন আপনাকে ওই বোডিং থেকে আপনার এখন যেখানে টিউবয়েলের আছে সেখানে পাইপ নিয়ে আসতে হবে বড় করে।

পাইপ নিয়ে আসার পর পুরাতন বডিং বন্ধ করে দিয়ে আপনারা ওই নতুন বোডিং থেকে পানি সংগ্রহ করবেন।

এখানে এখানে বলে রাখা ভালো যদি আপনার ঘরের মধ্যের মাটিতেও আয়রন মুক্ত থাকে তাহলে সেখানেই বোডিং করে মাটির উপর দিয়ে পাইপ নিয়ে গিয়ে নতুন টিউবয়েল এ লাগিয়ে দেওয়া যাবে।

এই টিউবয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায়টি অবলম্বন করলে আপনার জন্য সবথেকে ভালো হবে। তাহলে একবারেই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। নতুন করে আর কোনো ফিল্টার কিংবা আর কোন পানির আয়রন দূর করার উপায় অবলম্বন করে আয়রন মুক্ত করতে হবে না।

মিস্ত্রি দিয়ে আয়রন দূর

অনেক মিস্ত্রি আছে যারা পুরাতন টিউবওয়েলের বোডিংকে আয়রন মুক্ত করে দেয়। তবে এই পদ্ধতির কতটা কাজের সেটা আমরা জানি না।

এর কারণ হচ্ছে এটি দিয়ে আয়রন মুক্ত করার চেষ্টা করলে আপনার কাজটি সফল হতে পারে আবার না হতে পারে। মাটির এক জায়গায় আয়রন থাকলে ওই জায়গা থেকে আয়রন গুলো সরিয়ে দেওয়া এত সহজ নয়।

তাই আমরা সাজেস্ট করব এইভাবে টাকা খরচ করিয়ে আপনার পুরাতন টিউবয়েলের আয়রন মুক্ত করার চেষ্টা না করে নতুন করে বোর্ডিং দেন।

আশা করি আমরা আজকের এই পোস্টে যে সকল টিউবয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় আপনাদেরকে জানিয়েছি এগুলো প্রত্যেকটি আমরা বুঝতে পেরেছেন।

এরপরও যদি এই উপায় গুলোর মধ্যে কোন উপায় বুঝতে আপনার সমস্যা হয় সেটা অবশ্যই আমাদেরকে জিজ্ঞেস করে জেনে নিবেন।

পরিশেষে

আলহামদুলিল্লাহ আজকের পোস্টে আমরা পানিতে থাকা আয়রন সম্পর্কে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ টপিক আপনাদের সাথে আলোচনা করেছি। এই পোস্টে আমরা টিউবয়েলের পানিতে আয়রন দূর করার উপায় সহ পানিতে আয়রন থাকলে কি হয় এবং পানিতে আয়রন পরীক্ষা করার উপায় গুলো খুব সহজভাবে বিশ্লেষণ করা হয়েছে।

এরপরও এই পানির আয়রন সম্পর্কে আপনার মাথায় কোন প্রশ্ন আসলে সেটা আমাদের কে জিজ্ঞেস করবেন। পানিতে আয়রন থাকলে কি হয় এই প্রশ্নটিও যদি আপনারা বুঝে না থাকেন আমরা আপনাকে আবার বুঝে দেওয়ার জন্য রাজি আছি।

তো যদি আপনার কোন পরিচিত মানুষের বাড়িতে এ ধরনের আয়রন থাকে তাহলে তার কাছে এই পোস্টটি শেয়ার করে তাকে জানার সুযোগ করে দিতে পারেন।

ভালো লাগতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button