ফিড তৈরির মেশিনের দাম – গরুর ফিড তৈরির উপাদান

ষাঁড় গরু কিংবা গাভী গরু প্রত্যেক গরুকে ফিড খাওয়ানো অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ। গরুর দৈহিক বৃদ্ধির জন্য এবং দুগ্ধবতী গাভীদের জন্য এই ফিড প্রতিনিয়তই দিতে হয়। কিন্তু যাদের বেশি গরু রয়েছে তাদের এত ফিড ক্রয় করা সম্ভব হবে না।  এই কারণে তারা ফিড তৈরির মেশিনের দাম জেনে একটি ফিড তৈরির মেশিন কিনতে চায়।

যদি আপনি অনেক বেশি গাভী লালন পালন করে থাকেন তাহলে আপনারও একটি ফিড তৈরির মেশিন ক্রয় করাও প্রয়োজন। এই ফিড তৈরির মেশিনের দাম একটু বেশি হয়ে থাকে তবে একটি কিনলে আপনার অনেক দিন চলে যাবে। উদাহরণ এর এই পোষ্টে সব বুঝানো হবে।

ফিড তৈরির মেশিন গুলো বেশ এক্সপেন্সিভ হয়ে থাকে এবং যাদের বেশি পরিমাণের গরু থাকে তারাই এগুলো কিনতে পারে। যাই হোক আপনারও কি অনেক বেশি গভী রয়েছে এবং সেজন্য এই ফিড তৈরির মেশিনের দাম জানতে চাইছেন  ? তাহলে আজকের পোস্ট শেষ পর্যন্ত পড়লে আপনি ফিড তৈরির মেশিনের দাম এবং এই মেশিনগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

ফিড তৈরির মেশিনের দাম – গরুর ফিড তৈরির উপাদান

আমাদের দেশে পোল্ট্রি ফার্ম গুলোর সংখ্যা দিন দিন ব্যবহারে হারে বেড়ে চলেছে। আর এই পোল্ট্রি খামারিরা প্রতিনিয়ত অনেক পরিমাণে ফিড ক্রয় করতেছে তাদের গাভীদের জন্য।

যেহেতু এত পরিমানের ফিড বিক্রি হচ্ছে তাই অনেক উদ্যোক্তা আছে যারা ফিড তৈরির মেশিন কিনে সেখানে ফিড উৎপাদন করে বিক্রি করতে চাচ্ছে। আপনি ছোট ব্যবসায়ী হন কিংবা বড়। যদি আপনি ফিড তৈরীর ব্যবসা শুরু করতে পারেন তাহলে অবশ্যই এখান থেকে লাভবান হবেন।

আমাদের দেশের অনেক মানুষ এখন এই খামারগুলো করার জন্য বেশ আগ্রহী হয়ে উঠছে। একটি গবেষণা মতে আমাদের দেশে প্রতিবছর প্রায় ৬.৪ মিলিয়ন মেট্রিক টন পোল্ট্রি ফুড খাবারের যোগান দিতে হয়।

আর এই সংখ্যাটা প্রতিবছরে 10 থেকে 12% শতকরা হারে বেড়েই চলেছে। এছাড়াও আমাদের দেশে প্রায় দুইশটির ও অধিক পোল্ট্রি খাবারের উৎপাদন সংস্থা আছে তারপরেও তারা এই খাবারগুলো যোগান দিতে হিমশিম খাচ্ছে।

এই কারণে যদি আপনি আপনার এলাকায় কিংবা শহর এলাকায় ছোট বা বড় পরিসরে ফিড তৈরির কারখানা দিতে পারেন তাহলে সেখান থেকে খুব তাড়াতাড়ি সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

গরুর ফিড তৈরির উপাদান

যদি আপনি ফিড তৈরির কারখানা দিতে চান তাহলে সেখানে কিন্তু বিভিন্ন ধরনের কাঁচামালার প্রয়োজন হবে। কারণ এই কাঁচামাল গুলো ছাড়া আপনি ফিড তৈরি সফলভাবে করতে পারবেন না।

See also  মসজিদের সাউন্ড সিস্টেম - মসজিদের স্পিকারের দাম ২০২৩

এই কারণে এখন আমরা আপনাকে এই গরুর ফিড তৈরির উপাদান গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝিয়ে দেব। প্রথমে আপনাকে ভালোমতো এই উপাদানগুলো সম্পর্কে জানতে হবে তারপর এই উপাদানগুলো নিয়ে এসে ফিড তৈরীর কাজ শুরু করতে হবে।

নিচে এক এক করে উপাদান গুলো উল্লেখ করা হলো :

  • ভুট্টা
  • প্রোটিন কনসেনট্রেট
  • সয়াবিন মিল
  • মাস্টার অয়েল কেক
  • লাইম স্টোন
  • রাইস ব্রান
  • ফিশ মিল
  • হুইট পলিশ
  • ব্রয়লার ফিড
  • কর্ন গ্রেটন মিল
  • লেয়ার ফিড

এই সমস্ত উপাদান গুলো হলে আপনি যেকোনো পোল্ট্রি খামারের জন্য ফিড উৎপাদন করতে পারবেন। এই উপাদানগুলো আপনারা বিভিন্ন ধরনের ফিড উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান থেকে পেয়ে যাবেন।

তো যদি আপনি ফিড তৈরির মেশিন ক্রয় করে ভালোভাবে এই ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে এই উপাদানগুলো আগে সংগ্রহ করুন তারপর শুরু করুন।

ফিড তৈরির মেশিনের দাম

বন্ধুরা বিভিন্ন কারখানায় কিন্তু বিভিন্ন প্রাণীর জন্য ফিড তৈরি করে থাকে। এখন আপনি কোন প্রাণীর জন্য পোল্ট্রি ফিড তৈরি করবেন সেটা আপনাকে বাছাই করে নিতে হবে।

এখানে আপনি চাইলে হাঁস মুরগি কিংবা এই ধরনের প্রাণীদের জন্য বানাতে পারেন আবার গরু মহিষের জন্যও বানাতে পারেন। তবে হ্যাঁ মেশিন ক্রয় না করলে কিন্তু এই ফিড গুলো বানানো কোনভাবেই সম্ভব নয়।

বর্তমানে মার্কেটে এই ফিড তৈরির জন্য বিভিন্ন ধরনের মেশিন আছে। তো এখন আপনার কোন ফিড তৈরির মেশিন প্রয়োজন সেটা আপনাকে বুঝতে হবে।

আপনি কি পরিমান খাদ্য একবারে উৎপাদন করতে চান তার ক্যাপাসিটির উপরেও মেশিনের সক্ষমতা নির্ভর করছে। সেই সক্ষমতা বিবেচনা করেই আপনাকে মেশিনটি কিনতে হবে।

কোন কোন ফ্যাক্টরি প্রতি ঘন্টায় ১০০ থেকে ২০০ কেজি ফিড বানায় আবার কোন কোন ফ্যাক্টরি ঘন্টায় মেট্রিক টন পর্যন্ত ফিড বানিয়ে থাকে। এখন আপনার ব্যবসা কি পরিমাণে সম্প্রসারিত করতে চাচ্ছেন সেই অনুযায়ী আপনাকে ফিড বানানোর কাজ চালাতে হবে ।

এখানে স্বয়ংক্রিয় বা আধুনিক একগুলো ফিড তৈরির মেশিন আছে। তবে এই মেশিনগুলোর দাম অনেক বেশি এগুলো ৫০ লাখ থেকে শুরু করে এক কোটি টাকা পর্যন্ত দাম রয়েছে।

তবে হ্যাঁ যেগুলো ছোট মেশিন রয়েছে সেগুলোর দাম এত বেশি নয় এগুলো আপনি চাইলে খুব সহজে নিতে পারবেন। এই ছোট ফির তৈরির মেশিনের দাম হচ্ছে ১ লাখ টাকা থেকে শুরু করে ৫-৬ লাখ পর্যন্ত।

ফিড তৈরির মেশিনের দাম একদম ফিক্সড ভাবে বলা সম্ভব নয়। এর কারণ হচ্ছে এগুলো বিভিন্ন কোম্পানি বিভিন্নভাবে বানিয়ে থাকে এবং আলাদা আলাদা ডিজাইন হয়ে থাকে। এছাড়াও এগুলোর কোন নির্দিষ্ট মডেল নাম্বার নেই যেটা দিয়ে আপনি বুঝবেন কোনটার দাম কত।

এই মডেল নাম্বার না থাকার কারণে আপনাকে সরাসরি কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করতে হবে এবং তারা যে মেশিন বানিয়েছে যে টাকার মধ্যে সেটা আপনাকে নিতে হবে।

See also  ৫০০ টাকায় বাটন মোবাইল - ৫০০ টাকার মধ্যে বাটন মোবাইল 2023

একটি ফিড তৈরির মেশিনের দাম ও বিস্তারিত

এখানে আমরা এখন একটি ফিড তৈরির মেশিনের দাম এবং এই মেশিন দিয়ে কি কি করা যাবে সেটা সম্পর্কে আপনাদেরকে জানাবো। এগুলো ছোট মেশিন এবং এগুলোর দাম ও কিছুটা কম ।ফিড তৈরির মেশিনের দাম - গরুর ফিড তৈরির উপাদানআমি যে মেশিনটি সম্পর্কে আপনাদেরকে জানাবো সেটার ফটো উপরে দিয়ে দিয়েছি।  যদি আপনি খুব ছোট পরিমানের ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে এই মেশিনটি নিতে পারেন। চলুন এই মেশিন সম্পর্কে যাবতীয় আলোচনা করি।

✓ এই ফিড তৈরির মেশিনটি চায়না থেকে বানানো হয়েছে এবং এটি ২২০ ভোল্ট দিয়ে চলবে।

✓ এই মেশিনটিতে ৩ অশ্ব ক্ষমতার একটি মোটর দেওয়া হয়েছে এবং এর ক্যাপাসিটি ১০০ থেকে ১২০ কেজি প্রতি ঘন্টা।

✓ এই মেশিনের বডি বানানো হয়েছে স্টিল ধাতু দিয়ে এবং এর ওজন ১১০ কেজি এর মত।

✓ আপনারা যদি মেশিনটি ক্রয় করেন তাহলে এটার কোম্পানি থেকে এক বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি পাবেন । অর্থাৎ এক বছরের মধ্যে যদি মেশিন টি কোনভাবে কোন ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাহলে কোম্পানি থেকে বিনামূল্যে সারিয়ে নিয়ে আসতে পারবেন।

✓ এই মেশিনটি দিয়ে আপনারা বিভিন্ন ধরনের আকারের খাবার তৈরি করতে পারবেন। এটা দিয়ে আপনারা মাছের ফিড তৈরি করতে পারবেন। এছাড়াও হাঁস মুরগি ছাগল গরু ভেড়া মহিষ এই সব ধরনের প্রাণীর ফিড খুব সহজে তৈরি করতে পারবেন।

✓ এই মেশিনটি সাথে আপনারা মোট তিনটি ডাইস পাবেন যে ডাইসগুলো বিভিন্ন সাইজের হবে। ডাইসগুলোর পাশাপাশি এই মেশিনটি চালানোর জন্য যে সকল টুলস এর প্রয়োজন সেগুলো আপনারা মেশিনের সাথে পেয়ে যাবেন।

✓ এই মেশিনের সাথে যে সমস্ত ডাইস গুলো আপনারা পাবেন সেগুলোর সাইজ হচ্ছে ২.৫ মিলিমিটার ৩ মিলিমিটার এবং ৪ মিলিমিটার এর । আর এগুলো দিয়ে আপনারা বিভিন্ন সাইজের ফিড তৈরি করতে সক্ষম হবেন।

✓ যদি আপনি এই মেশিনটি ক্রয় করেন তাহলে এটা থেকে প্রতি ঘন্টায় ১০০ থেকে ১২০ কেজি পর্যন্ত ফিড উৎপাদন করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনার ছোট্ট ব্যবসার জন্য এটা একদম পারফেক্ট।

✓ যেহেতু এই মেশিনে 3hp এর একটি মোটর ব্যবহার করা হয়েছে তাই সরাসরি ২২০ ভোল্ট এর কারেন্ট ব্যবহার করে এটি ব্যবহার করতে হবে।

✓ ফিড তৈরির এই মেশিনটি আপনারা এক লাখ টাকার আশেপাশে পেয়ে যাবেন।

আশা করি মেশিনটি সম্পর্কে আপনারা যাবতীয় ইনফরমেশন পেয়ে গেছেন। এগুলো দেখে যদি মেশিনটি আপনার পছন্দ হয় বা যদি মনে করেন যে এই মেশিনটি হলে আপনার কাজ হয়ে যাবে তাহলে এটা নিতে পারেন।

আর হ্যাঁ কোম্পানিতে যাওয়ার পর অবশ্যই এই ফিড তৈরির মেশিনের দাম এবং এর সম্পর্কে আরো বিস্তারিত ধারণা নিবেন এবং তারপর এটি নিবেন।

মেশিনটি দিয়ে ফিড তৈরির নিয়ম

বন্ধুরা এই মেশিনটি দিয়ে যদি আপনারা ফিড তৈরি করতে চান তাহলে নিচে থেকে ফিড তৈরির নিয়মটা ভালো মতো আপনাদেরকে জেনে নিতে হবে।

See also  কয়েকটি ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন ২০২৩

✓ সর্বপ্রথমে মেশিন টিকে নিয়ে এসে আপনাকে জায়গামতো বসাতে হবে। যেখানে আপনি আপনার ফিটগুলো তৈরি করতে চাচ্ছেন।

✓ মেশিনটি বসানো হয়ে গেলে আপনাকে এখন নির্ধারণ করতে হবে যে আপনি কোন সাইজের ফিড বানাতে যাচ্ছেন। যে সাইজের ফিড বানাতে চাচ্ছেন সেই সাইজ অনুযায়ী ডাইস টি এখানে বসিয়ে দিবেন।

✓ এরপর মেশিনের মধ্যে আপনি ফিড তৈরির উপাদান গুলো সেখানে ঢেলে দিবেন । আর এই ফিড তৈরির জন্য কি কি উপাদান লাগবে সেটা কিন্তু আমরা পোষ্টের শুরুর দিকে আপনাদের কে দেখিয়ে দিয়েছি।

✓ সবকিছু কমপ্লিট হয়ে যাওয়ার পরে মেশিনের মধ্যে যে লাইনটি পাবেন সেটা সরাসরি আপনার কারেন্টের সকেটের মধ্যে বসিয়ে বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ করতে হবে।

এরপর আপনারা অপেক্ষা করবেন দেখবেন অটোমেটিক সেখানে ফিড তৈরি হয়ে যাচ্ছে। এভাবে প্রতি ঘন্টায় এই মেশিন দিয়ে ১০০ কেজির মত ফিড বানানো সম্ভব।

মুরগির ফিড তৈরির মেশিনের দাম

উপরে আমরা যে ফিড তৈরির মেশিনের দাম আপনাকে বলেছি সেই মেশিনটি দিয়ে আপনারা মুরগির ফিড ও খুব সহজে বানাতে পারবেন। তবে এর জন্য শুধুমাত্র আপনাকে ডাইস টি নির্ধারণ করতে হবে।

আপনার মুরগি কি পরিমান সাইজের ফিড খেতে পারে সেটা আপনাকে আগে দেখতে হবে তারপরে সেই সাইজের ডাইস বসিয়ে আপনাকে ফিদগুলো উদ্বোধন করতে হবে।

তারমানে বুঝতেই পারছেন উপরের মেশিনের দামেই আপনারা মুরগির ফিড তৈরির মেশিন পেয়ে যাবেন।

মাছের ফিড তৈরির মেশিনের দাম

অনেকেই আছে যারা মাছের জন্য ফিড তৈরি করতে চায় আবার কেউ কেউ নিজের পালন করা মাছের জন্য বানাতে চায়।

যার কারণে তারা মাছের ফিড তৈরির মেশিনের দাম খোজাখুজি করে থাকে। কিন্তু বন্ধুরা আপনাকে আলাদা করে খুঁজে হবেনা। এর কারণ হচ্ছে একটা মেশিন দিয়েই আপনি মাছের ও ফিড খুব সহজে বানাতে পরবেন।

শুধুমাত্র আপনাকে ডাইস নির্ধারণ করে দিয়ে মাছের খাওয়ার উপযুক্ত উপাদান গুলো ওখানে ঢেলে দিয়ে মাছের জন্য ফিড গুলো সহজেই বানিয়ে নিতে পারবেন।

পরিশেষে

আজকের পোস্টে আপনারা পাঠকদের কে ফিড তৈরির মেশিনের দাম এবং এই মেশিন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। যদিও এগুলো অনেক ধরনের মেশিন পাওয়া যায়।

কিন্তু আপনি সেই মেশিন টি কিনবেন যেটা কিনতে আপনি আপনার ব্যবসায় ভালোভাবে ফিড সাপ্লাই দিতে পারবেন। বেশি বড় মেশিন কিনলে আপনার লস হবে । আবার বেশি ছোট মেশিন কিনলে সাপ্লাই দিতে পারবেন না।

যদি ফিড তৈরির মেশিন বা গরুর ফিড তৈরির উপাদান সম্পর্কে আপনার মনে আরো ও কিছু জানার ইচ্ছা থাকে তাহলে সেটা অবশ্যই কমেন্ট করে আমাদেরকে জানাবেন। ভালো থাকবেন।

ভালো লাগতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button