কয়েকটি ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন ২০২৩

বাংলাদেশ সহ প্রায় বেশিরভাগ দেশে জনপ্রিয় মোবাইল ব্র্যান্ড গুলোর মধ্যে একটি রিয়েলমি। রিয়েলমি মোবাইল ব্র্যান্ড টি যে সকল মোবাইল মার্কেটে ছেড়ে দেয় সেগুলোর মান প্রত্যেকটারই অনেক বেশি ভালো থাকে

অনেকে আছে যারা অনেক বেশি দামি মোবাইল ব্যবহার করে। কিন্তু আমরা যারা মধ্যবিত্ত বা নিম্নবিত্ত পরিবারের সন্তান আছি তাদের কিন্তু বেশি দামের মোবাইল ব্যবহার করা সম্ভব হয় না। আর আমাদের মোবাইল ব্যবহার করতে হয় 8 থেকে 10 হাজার টাকার মধ্যে।

তো এই কারণে আমরা আজকের এই পোস্টে ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোনগুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যাদের মোবাইল কেনার ক্ষেত্রে বাজে একটু কম কিন্তু realmi কোম্পানিরই মোবাইল কিনতে চান তারা অবশ্যই আজকের পোস্টে দেখানো ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন গুলো দেখবেন।

৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন

realme কোম্পানি এত দ্রুত জনপ্রিয় হওয়ার প্রধান কারণ হচ্ছে তারা যে সমস্ত মোবাইল মার্কেটে লঞ্চ করে সেগুলো প্রত্যেকটার কনফিগারেশন বেশ ভালো থাকে।

এছাড়াও তাদের মোবাইল গুলো খুব তাড়াতাড়ি নষ্ট হয় না অর্থাৎ ভালো পারফরম্যান্স দিতে সক্ষম হয় অনেকদিন ধরে। এই কারণে আমরা অনেকেই চাই যে রিয়েলমি কোম্পানির মোবাইল ব্যবহার করব।

তাদের জন্যই এখন আমরা নিচে বেশ কিছু ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন শেয়ার করব ।

1. Realme C20A

আট হাজার টাকার মধ্যে realme কোম্পানি খুব বেশি মোবাইল মার্কেটের লাঞ্চ করে নাই। এর প্রধান কারণ হচ্ছে তারা একটু দাম বেশি রাখে কিন্তু জিনিসগুলো অনেক কোয়ালিটি ফুল দিয়ে থাকে।

৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন ২০২৩

যাই হোক চলুন এই  Realme C20A মোবাইলটি সম্পর্কে বিস্তারিত এখন জেনে নেই।

✓ মোবাইলটি ২০২১ সালের মে মাসে বাংলাদেশে সর্বপ্রথম লঞ্চ করা হয় এবং এই মোবাইলটিতে আপনারা 4 জি নেটওয়ার্ক এ খুব সহজে ইন্টারনেট চালাতে পারবেন ।

✓ মোবাইলটি আপনারা আয়রন গড়ে এবং ব্লু কালার এই দুটির রং এর খুব সহজে পেয়ে যাবেন। এই দুটি রং এর ডিজাইনই এই মোবাইলটিকে অনেক ভালো দেখতে চমৎকার করে তুলেছে।

✓ এই মোবাইলটিতে 6.5 ইঞ্চি এর পরিষ্কার একটি চমৎকার ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে এবং এই মোবাইলের ওজন মাত্র 195 গ্রাম।

✓ ডিসপ্লেটির ফাংশন হচ্ছে আই পি এস ডিসপ্লে এবং এরা মাল্টিটাস এর একটি ডিসপ্লে। এছাড়াও এখানে চমৎকার রেসপন্স এর একটি টাচ আছে।

✓ মোবাইলের পিছনে সিঙ্গেল একটি ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে এবং সামনেও সিঙ্গেল আরেকটি ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে   এই ক্যামেরাগুলো দিয়ে আপনারা ১০৮০ পিক্সেল রেজুলেশনের ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন।

✓ ফোনের সাথে দশ ওয়াট ফার্স্ট চার্জিং সিস্টেম দেওয়ার পাশাপাশি এটাতে ৫০০০ মিলিম্পিয়ার ব্যাটারি লাগানো আছে।

✓ মোবাইলটিতে ram ব্যবহার করা হয়েছে ২ জিবি এবং ফোন মেমোরি ৩২ জিবি। এছাড়াও এটি দিয়ে বেশ ভালো পারফরমেন্স দেওয়ার জন্য মিডিয়া টেক helio G35 প্রসেসরটি ব্যবহার করা হয়েছে।

See also  সেরা ৪ টি এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল এর দাম ও বিস্তারিত ২০২৩

একটি মোবাইল কেনার জন্য যে সমস্ত ইনফো গুলো জানা প্রয়োজন টা আমরা উপরে দিয়েছি। এখন আপনি নিজেই সিদ্ধান্ত নিবেন যে এই মোবাইলটি আপনি কিনবেন কি না।

আর হ্যা উক্র Realme C20A মোবাইল এর দাম মাত্র ৮৯৯০ টাকা। আশা করি ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন গুলোর মধ্যে এটি অনেক ভালো হবে।

2. Realme C2

বর্তমানে ৮ হাজার টাকার মধ্যে realme ফোন পাওয়া খুবই কঠিন ব্যাপার। তারপরেও আমরা আট হাজার টাকা দামের আশেপাশে যে মোবাইল গুলো রিয়েলমি থেকে লঞ্চ করা হয়েছিল সেগুলো আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছি।

৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন ২০২৩

পোস্টের দুই নম্বরে আমরা realme c2 মডেলের মোবাইলটি আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছি। এই মোবাইলটির দাম হিসেবে এর পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভাল এবং ৮০০০ টাকার মধ্যে আপনারা এই মোবাইলটি পেয়ে যাবেন।

তাহলে চলুন এই ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েল ফোন টি কেমন হবে এবং এটা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।

✓ এই মোবাইলটি অনেকদিন আগে অর্থাৎ ২০১৯ সালের মে মাসে বাংলাদেশে লঞ্চ হয়েছিল।

✓ মোবাইলটিতে 6.1 ইঞ্চি এর একটি ভালো ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে যেটার রেজুলেশন হচ্ছে ৭২০ পিক্সেল।

✓ এখানে যে ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে সেটার টেকনোলজি হিসেবে আইপিএস এলসিডি রাখা হয়েছে এবং এর ফিচার হচ্ছে মাল্টি টাস ফিচার।

✓ এছাড়াও মোবাইলে থাকা ডিসপ্লে এবং টাচ স্ক্রিন কে প্রটেক্ট করার জন্য এটার সাথে একটি কর্নিং গরিলা গ্লাস থ্রি প্রোটেক্টর দেওয়া হয়েছে কোম্পানি থেকে।

✓ এই মোবাইলটি বানানো হয়েছে সম্পূর্ণ প্লাস্টিক বডি এর । আর এটি দুইটি রংয়ের পাওয়া যাবে একটি হচ্ছে ডায়মন্ড ব্লাক এবং আরেকটা আছে ডায়মন্ড ব্লু।

✓ এই ফোনটি যেহেতু মাত্র 166 গ্রাম ওজনের। তাই এটি ব্যবহার করা এবং এটি নিয়ে চলাফেরা করতে অনেকটা সহজ হয়ে যাবে।

✓ realme কোম্পানির এই মোবাইলের পিছনে দুইটি ক্যামেরা সেন্সর লাগানো হয়েছে একটি হচ্ছে ১৩ মেগাপিক্সেল যেটা প্রাইমারি শুটার এবং আরেকটি দুই মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা বসানো আছে।

✓ এছাড়াও এই মোবাইলের সামনে ৫ মেগাপিক্সেলের আরেকটি ক্যামেরা লাগানো আছে যেটা দিয়ে অসাধারণ সেলফি তোলা সম্ভব। আর পিছনের ক্যামেরা যদি আপনারা সর্বোচ্চ ১ হাজার ৮০পি রেজুলেশন এর ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন।

✓ ব্যাটারি সেকশনে মোবাইলটির কোম্পানি বেশ ভালো কাজ করেছে। এখানে তারা ৪০০০ মিলিম্পিয়ার এর লিথিয়াম পলিমার একটি চমৎকার ব্যাটারি দিয়েছে।

✓  মোবাইলের ব্যাটারি যাতে তাড়াতাড়ি চার্জ হয় এর জন্য কোম্পানি থেকে বিল্ড ইন ১০ ওয়াটের একটি চার্জার ও দেওয়া হয়েছে। যেটা ব্যবহার করে মোবাইলটিকে চার্জ করতে মোটামুটি তিন ঘন্টার মত সময় লাগতে পারে।

✓ এছাড়া মোবাইলটি যাতে ভালো পারফর্মেন্স দিতে পারে এজন্য প্রসেসর সেকশনে এ Mediatek Helio P22  চিপসেট টি লাগানো হয়েছে । এই চিপসেট টি ১২ ন্যানোমিটারের হওয়ায় এটা থেকে বেশ ভালো পারফরম্যান্স পাওয়া যাবে।

See also  মসজিদের সাউন্ড সিস্টেম - মসজিদের স্পিকারের দাম ২০২৩

✓ এছাড়া প্রসেসর হিসেবে এখানে দুই গিগা হার্জ এর অক্ট কোর এর চমৎকার প্রসেসর লাগানো হয়েছে।

✓ তবে মোবাইলটিতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে android 9 ব্যবহার করা হয়েছে। এই কারণে এই মোবাইলে আপনারা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন এর বেশিরভাগ সফটওয়্যার ইনস্টল করতে পারবেন ।

✓ মোবাইল ফোনটিতে রেম সেকশনে ২ জিবি এবং ইন্টারনাল মেমরি সেকশনে ৩২ জিবি স্টোরেজ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও সর্বোচ্চ 256gb external memory ব্যবহার করে আপনারা এটির স্টোরেজ খুব সহজে বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

✓ কিন্তু এই মোবাইল ফোনের সিকিউরিটি সিস্টেমে কোন ধরনের ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর লাগানো হয়নি শুধুমাত্র ফেস আনলক ব্যবহার করে আপনাকে সিকিউরিটি সিস্টেমের কাজ সেরে নিতে হবে।

তো বন্ধুরা যাদের বাজেট মোটামুটি ৮ হাজার টাকার মত এবং মোবাইলের বিস্তারিত ইনফরমেশন গুলো দেখে যাদের পছন্দ হয়েছে তারা এই মোবাইলটি নিতে পারেন। তো এই মোবাইলের বর্তমান বাজার মার্কেট ৮৯৯০ টাকা।

তবে realme কোম্পানির এই মোবাইলটিতে যেহেতু ফিঙ্গারপ্রিন্ট আনলক ব্যবহার করা হয় নাই তাই যাদের ফিঙ্গারপ্রিন্ট আনলক লাগবে তারা এই মোবাইলটি না নিলেও হবে ।

3. Realme C11

realme কোম্পানি থেকে C সিরিজের যে সমস্ত মোবাইল বাজারে লঞ্চ করা হয়েছিল প্রায় সবগুলো মোবাইলই দর্শকরা পছন্দ করেছে। তবে হ্যাঁ এগুলো যেহেতু কিছুদিন আগে বা পুরাতন এসেছে তাই নতুন মডেল গুলোই এখন বেশি মানুষ পছন্দ করে।

৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন ২০২৩

তো ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন লিস্ট এ আমরা তিন নম্বরে realme c11 নিয়ে কথা বলব । আমরা মোবাইল এর পারফরম্যান্স সেকশন দেখবো এছাড়াও এই মোবাইলের যাবতীয় ইনফরমেশন গুলো দেখবো এবং আপনাদেরকে সাজেশন করব যে এই মোবাইলটি আপনার নেওয়া ঠিক হবে নাকি হবে না।

✓ যখন ২০২০ সাল চলছিল এবং জুলাই মাসের ৭ তারিখ, তখন এই মোবাইলটি বাংলাদেশে লঞ্চ করা হয়।

✓ মোবাইল ফোনটিতে আপনারা একবারে দুইটি সিম কার্ড সহ একটি এক্সটার্নাল মেমোরি ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন।

✓ এই মোবাইলে কানেক্টিভিটিতে আপনারা 4 জি ইন্টারনেট চালাতে পারবেন এছাড়াও ব্লুটুথ ওয়াইফাই হটস্পট সহ যাবতীয় কানেক্টিভিটি গুলো এতে ইনক্লুড করা আছে।

✓ ভালো ব্যাপার হচ্ছে এই মোবাইলে এফএম রেডিও সাপোর্ট করে এবং এখানে আপনি ওটিজি ক্যাবল ও ব্যবহার করতে পারবেন। তবে হ্যাঁ মোবাইলটির চার্জারে সি টাইপ কোন ধরনের জ্যাক দেওয়া হয়নি।

✓ মোবাইলটির ওপরে একটি মিনিমাল নচ আছে এবং এই মোবাইলের ওজন হচ্ছে ১৮২ গ্রাম কারণ মোবাইলটি সম্পূর্ণ প্লাস্টিক বডি দিয়ে বিল্ড করা হয়েছে, কিন্তু সামনের অংশটি সম্পূর্ণ গ্লাস দিয়ে বানানো।

✓ এই মোবাইলে 6.5 ইঞ্চি এর মাল্টি টাচ ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। ডিসপ্লের সাইজ ৬.৫ ইঞ্চি হওয়ার পাশাপাশি এর রেজুলেশন হচ্ছে ৭২০ পিক্সেল।

✓ ক্যামেরা সেকশনে এই মোবাইলটি বেশ ভালো কাজ করেছে । পিছনে মোট দুইটি ক্যামেরা দিয়েছে তার মধ্যে একটি ১৩ মেগাপিক্সেল এবং আরেকটি দুই মেগাপিক্সেল।

See also  ফিড তৈরির মেশিনের দাম - গরুর ফিড তৈরির উপাদান

✓ পিছনে ক্যামেরা ভালো দেওয়ার পাশাপাশি এর সামনেও ৫ মেগাপিক্সেলের একটি চমৎকার ক্যামেরা দিয়েছে। পিছনে এবং সামনে যে ক্যামেরা গুলো এই মোবাইলে দেওয়া হয়েছে এই ক্যামেরা গুলো দিয়ে আপনারা ১০৮০পি রেজুলেশনের ভিডিও রেকর্ড করতে সক্ষম হবেন।

✓ আর হ্যাঁ ব্যাটারি সেকশনেও মোবাইলটি অনেক ভালো কাজ করেছে এখানে লিথিয়াম পলিমার এর ৫০০০ মিলিয়ম্পিয়ার এর একটি শক্তিশালী ব্যাটারি দিয়েছে। এই ব্যাটারি দিয়ে আপনারা অনায়াসে দুই থেকে তিন দিন মোবাইল টিকে ব্যবহার করতে পারবেন।

✓ ৫০০০ মিলি এম্পিয়ার ব্যাটারীটি যাতে দ্রুত চার্জ হয় এজন্য কোম্পানি থেকে একসাথে ১০ ওয়াট এর একটি ফাস্ট চার্জার ও দিয়ে দেওয়া আছে।

✓ Realme C11 মোবাইলটি চলছে android ১০ অপারেটিং সিস্টেমের উপর। আর এই ফোনে র‍্যাম দুই জিবি এবং ইন্টার্নাল মেমোরি তে ৩২ জিবি ব্যবহার করেছে।

✓ পারফরম্যান্সে সেকশনে গিয়ে তারা সিপিইউ হিসেবে এখানে মিডিয়াটেক হেলিও G35 সি পি ইউ টি লাগিয়ে দিয়েছে।

✓ এছাড়াও এখানে প্রসেসর সেকশনে ২.৩০ গিগা হার্জ এর একটি প্রসেসর লাগানো আছে। এই প্রসেসর এবং চিপসেট দিয়ে আপনারা মোটামুটি পাবজি এবং ফ্রি ফায়ার গুলো খেলতে পারবেন। তবে হ্যাঁ বেশিক্ষণ এটাতে বড় বড় গেম গুলো খেললে মোবাইলটি গরম হবে এবং ল্যাগ দেওয়ার সম্ভাবনা আছে।

উপরে আশা করি এই realme c11 মোবাইল সম্পর্কে আপনার বিস্তারিত জেনে এসেছেন। যদি আপনি এমন মোবাইল খুজে থাকেন যেটাতে ব্যাটারি ব্যাকআপ ভালো পাবেন এবং প্রসেসর সেকশন ও একটু ভালো আছে তাহলে আপনি এই মোবাইলটি নিতে পারেন।

আর হ্যাঁ এই রিয়েলমি কোম্পানির মোবাইলটির দাম ও মাত্র ৮৯৯০ টাকা। তো আপনার বাজেট ৮ হাজার টাকার আশেপাশে হয়ে থাকলে এই মোবাইলটা একদম পারফেক্ট আপনার জন্য।

পরিশেষে

আজকের পোস্টে আমরা মোট তিনটি ৮ হাজার টাকার মধ্যে রিয়েলমি ফোন আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি। আমরা প্রত্যেকটি মোবাইলের যাবতীয় ইনফরমেশন গুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরেছি এখন এই ইনফরমেশন গুলো পড়ে যেটা আপনার কাছে ভালো মনে হবে আপনি চাইলে নিতে পারেন।

realme কোম্পানি সাধারণত কম দামের মোবাইল গুলো মার্কেটে আনে না । কারণ এগুলোতে তারা ভালো প্রডাক্ট দিতে পারেনা আর ইউজার এক্সপেরিয়েন্স খারাপ হয়ে যায়।

তারা সবসময় চেষ্টা করে উচ্চ মানের সার্ভিস দিতে কাস্টমারদের কে। কারণ তারা সবসময় কাস্টমারের সুবিধাটা বেশি নিশ্চিত করতে পছন্দ করে। তো উপরে যে তিনটি মোবাইল আপনাদের সামনে শেয়ার করেছি আমি মনে করি যদি আপনার বাজেট এরকম আট হাজার টাকার আশেপাশে হয়ে থাকে এবং realme মোবাইলই কিনতে চান তাহলে realme c11 মোবাইল টি আপনি নিতে পারেন।

কারণ এই মোবাইলে হালকা পাতলা গেম খেলার পাশাপাশি ব্যাটারি ব্যাকআপ ভালো পাওয়া সম্ভব এছাড়াও আরো অন্যান্য সুবিধা পাবেন এই মোবাইলটিতে। তো আপনি কোন মোবাইলটি নিলেন সেটা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন ধন্যবাদ।

ভালো লাগতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button